গীতবিতান (Gitabitan)

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (RabindraNath Tagore)


গীতবিতান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সমুদয় গানের সংকলন গ্রন্থ। ১৯৩১ সালে (আশ্বিন, ১৩৩৮ বঙ্গাব্দ) এই গ্রন্থের প্রথম সংস্করণটি দুই খণ্ডে প্রকাশিত হয়। গীতবিতান প্রকাশের পূর্বে রবীন্দ্রনাথের ‘সমুদয়’ গান মোট তেরোটি গীতিসংকলনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল। প্রথম সংস্করণে গীতবিতান গ্রন্থের বর্তমান পর্যায়বিন্যাস করা হয়নি। পরবর্তীকালে এই সংস্করণের সকল গান কবি ‘পূজা’, ‘স্বদেশ’, ‘প্রেম’, ‘প্রকৃতি’, ‘বিচিত্র’ ও ‘আনুষ্ঠানিক’ পর্যায়ে বিন্যস্ত করেন। এই বিষয়ানুক্রমে সজ্জিত হয়ে রবীন্দ্রনাথের মৃত্যুর পর ১৯৪২ সালে (মাঘ, ১৩৪৮) গীতবিতান গ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণ দুই খণ্ডে প্রকাশিত হয়। বর্তমানে এই সংস্করণটিই প্রচলিত। ১৯৫০ সালে (১৩৫৭ বঙ্গাব্দ) কবির যাবতীয় গীতিনাট্য-নৃত্যনাট্য, ও অন্যান্য গ্রন্থের অসংকলিত গান নিয়ে গীতবিতান সংকলনের তৃতীয় খণ্ড প্রকাশিত হয়। সমগ্র রবীন্দ্রসংগীতের সংকলন হিসেবে আজও গীতবিতান বাঙালি সমাজে বিশেষ জনপ্রিয় ও সমাদৃত এক গীতিসংকলন।
-
সূচিপত্র (2113)

নবজীবনের যাত্রাপথে দাও



নবজীবনের যাত্রাপথে দাও দাও এই বর হে হৃদয়েশ্বর-
প্রেমের বিত্ত পূর্ণ করিয়া দিক চিত্ত ;
যেন এ সংসারমাঝে তব দক্ষিণমুখ রাজে ;
সুখরূপে পাই তব ভিক্ষা, দুখরূপে পাই তব দীক্ষা ;
মন হোক ক্ষুদ্রতামুক্ত, নিখিলের সাথে হোক যুক্ত,
শুভকর্মে যেন নাহি মানে ক্লান্তি ।
শান্তি শান্তি শান্তি ।।



Facebook Commnet

Bengali Clicker @ Facebook