ওমা মাতৃভূমি বলো কি দিইনি তোমার চরনে? আমার ত্যাগ,তিতিক্ষা সবই তো তোমার বদনে। রোজ স্বপ্ন দেখতাম শুধু তোমাকে ভালবাসার, স্বপ্ন দেখতাম তোমার সন্তানদের কাছ থাকার। স্বপ্ন দেখতাম তোমার কোলের সুখের পরশের, তাইত হাতে তুলে নিয়েছিলাম ত্যাগের সমশের। সেদিন ছিন্ন করেছিলাম সমস্ত মায়া মমতার জাল, তোমাকে নিয়ে আমার ত্যাগে ছিল বড় নির্ভেজাল। সব ছিন্ন করে তাই তোমার বুকে নিয়েছিলাম আশ্রয়, আমি জানতামনা তোমার বুকের মানুষেরা এত নির্দয়। তেজদিপ্ত নবযৌবনের বানটি তোমাকেই সপে ছিনু। জীবনের সব ত্যাগ করে তোমাকেই ভালবেসেছিনু জীবন উজাড় করে যা দেবার সবি তোমাকে দিয়েছি। জীবন সহাহ্নে সবিতো শেষ মা বলো আমি কি পেয়েছি? বার বার চিন্তা করেছি তোমাকে আমি দিতে পারছিতো? মায়ের স্নেহ,পিতার আদর,স্ত্রীর ভালবাসা,ত্যাগ করছি তো? সন্তানদের মমতা ত্যাগ করে কাটিয়েছি মা তোমার চরনে, ও মা মাতৃভুমি এখন আমি অসহায় তাকিয়ে তোমার বদনে। আমি মুসাফির তোমাকে দিবার মত আছে শুধু নিঃশ্বাস খানি, প্রয়োজন হলে এ টুকুও দিতে কুন্ঠাবোধ করবোনা মা মনি। কিন্ত আমার জন্য কি তোমার কিছুই করার নাই হে মাতৃভূমী? তোমাকে ভালবেসে বিপদের হাতছানীতে নিঃশ্ব হলাম আমি। কেন আমার পদে পদে বাঁধা,কেন নাই অন্যায়ের প্রতিবাদ? তোমাকে ভালবেসে কেন মজলুম অসহায়রা করে আর্তনাদ। তোমাকে ভালবাসার মধ্যেতো কোন ঘাটতি ছিলনা, তবে কেন মজলুমের সাথে প্রহসন আর ব্যঙ্গ ছলনা।

 Tags:   শিনীয়
 Comment
0

No one commented yet.